Bengali Short Story

Bengali Short Story

প্রার্থনা
বিশের শেষে কাটুক বিষ করি এই প্রার্থনা,
দুরে গিয়ে সব হতাশা ফুটুক আশার আলোর ব্যন্জনা।
জিতবো মোরা সব যুব্ধ এই করলাম পণ,
দুরে গিয়ে সব হিংসা মিলেমিশে হোক সবাই আপন।।

–বিপত্নীক লোকটি খাটের উপর বাচ্চাটিকে গুড নাইট কিস দিয়ে চলে যাওয়ার সময় বাচ্চাটি বলে উঠল “বাবা দেখো যাদু ,আমাকে আয়নায় দেখা যচ্ছেনা”
সামনে থাকা আয়নাটি দেখে লোকটি নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারবে না,সে এবার প্রচন্ড আতংকিত হয়ে উঠল এই ভেবে “১ বছরের বাচ্চাটি কথা বলল কিভাবে?”
ইমরান ফজরের ঠিক কিছু আগের সময়টাতে মসজিদে নামাজ পড়ছিলো,পাশে একজন লোকও নামাজ পরছিল।
ইমরান ডান দিকে সালাম ফিরানোর সময়ও লোকটাকে তার বাম পাশে অনুভব করে কিন্তু বাম পাশে সালাম ফিরিয়ে দেখে কেও নেই।পুরো মসজিদ ফাঁকা।

–কোন এক পথের বাঁকে
যদি হয়ে যায় দেখা,
মুখ ফিরিয়ে নিসনে সেদিন,
ভাবিসনে অপরজনা।
ঠোঁটে রাখিস মিষ্ঠি হাসি
আর চোখে মায়াবী দৃষ্ঠি,
ভুলে যাবো সেদিন তোকে নিয়ে,
জমে থাকা মিথ্যে সব স্মৃতি।

–রাতের এই ঘনো ঘটায়,তারার ওই জোস্নায় দেখেছি কতো মেলা,কেটেছে সারা বেলা চাঁদের ওই সুন্দর রুপ টাতে দেখেছি কতো স্বপ্ন ওই মুখটাতে।–শুভ রাত্রি

যখন কেউ বলে “ ভালোবাসি”!
খুব জানতে ইচ্ছা করে,কেন ভালোভাসো?
মন প্রশ্ন করেকতদিন এভাবে ভালোবাসতে পারবে?
জীবনের শেষ অবধি ভালোবাসতে পারবেতো?
শুধু ভালোটাকেই ভালোবাসবে? আমার খারাপটা নেবে না?
যদি কাল সুন্দর না থাকি তাও কি থাকবে?
যদি কোন ভুল করি,তুমি কি ছেড়ে যাবে?
নাকি শুধরে নিবে নিজের মতো করে?
যেখানে সাথে কেউ থাকে না,যখন সবাই একা করে যাবে,
তখন এসে শক্ত করে হাতটা ধরে বলতে পারবেতো“ভালোবাসি”!
যা পেয়েছো! তা হারিও না,
যা হারিয়েছো!
তা পেতে চেয়োনা,
যা পাওনি!
তা কখনও তোমার ছিলনা।..

তুমি যখন ছিলে না তখন আমি একা শূন্য ছিলাম
আজো আমি একা তবে শূন্য নই এখন অনেক কিছু আছে এ হ্নদয়ে কষ্ঠ ,যন্ত্রণা ও হাহাকার।

রাত্রি আঁধার ঘনিয়ে এলো শান্ত হলো পাড়া
আকাশ পথে উঠলো ফুটে লক্ষ কোটি তারা।
দিনের শেষে ঘুমের দেশে কালান্ত পথ যাত্রী স্বপ্ন দেখার প্রহর শুরু জানাই শুভরাত্রি।